বন্ধুরা, অনেকদিন পর আবার ব্লগ লেখতে বসলাম।এত দিন ব্যস্ততার কারণে কিছু লেখতে পারিনি।আজ আমি একটা মজার ঘটনা বলবো।এটা বিজ্ঞানী আর্কিমিডিস এর একটি মজার কাহিনী।

আর্কিমিডিস এর সময় রাজা হিয়েরোর জন্য লরেল পাতার মুকুটের মত দেখতে একটি সোনার মুকুট প্রস্তুত করা হয়েছিল।আর্কিমিডিসকে দায়িত্ব দেওয়া হয় যে, এই মুকুটটি আসলেই শুধু স্বর্ণ দিয়ে নির্মিত, না কি এর মধ্যে ভেজাল রয়েছে???কাজটি খুব সহজ, মুকুটটি গলিয়ে তার ঘনত্ব নির্ণয় করা।কিন্তু রাজা এতে রাজি হলেন না।কারণ এতে করে মুকুটটি নষ্ট হয়ে যাবে।এজন্য আর্কিমিডিসকে অন্য উপায় চিন্তা করতে হবে।

তিনি চিন্তা করছেন আর চিন্তা করছে???????কোন উপায় পাচ্ছেন না।চিন্তা করতে করতে তিনি গোসল করতে গেলেন।যখন তিনি বাথটাবে গোসল করতে নামলেন তখন তিনি দেখলেন যে বাথটাবের পানির উচ্চতা বেড়ে গেছে।তার মাথায় যেনে ১০০০ ওয়াট এর বাল্ব জ্বলে উঠলো।

এইতো পেয়েছি!!!পানির এই ধর্মকে ঘনত্ব পরিমাপে ব্যবহার করা সম্ভব। যেহেতু ব্যবহারিক কাজের জন্য পানি অ সংকোচনশীল, তাই পানিতে নিমজ্জিত মুকুট তার আয়তনের সমান পরিমাণ পানি স্থানচ্যুত করবে। এই অপসারিত পানির আয়তন দ্বারা মুকুটের ভরকে ভাগ করে মুকুটের ঘনত্ব পরিমাপ করা সম্ভব।যদি সোনার সাথে অন্য কোন ধাতু মিশানো হয়ে থাকে তাহলে তার ঘনত্ব খাঁটি সোনার ঘনত্বের চেয়ে কম হবে।

এটা আবিষ্কারে আর্কিমিডিস দাদু এতই খুশি হয়ে গিয়েছিলেন যে তিনি “ইউরেকা ইউরেকা”(অর্থ: আমি পেয়েছি)বলে চিৎকার করতে করতে রাস্তায় নেমে পড়লেন।উল্লেখ্য বিষয় যে, তিনি এতই আনন্দিত হয়ে গিয়েছিলেন যে তার জামা-কাপড় পরতে ভুলে গিয়েছিলেন।

কিন্তু ঘনত্বের পার্থক্যের কারণে যে পরিমাণ পানি অপসারিত হবে সেটি সঠিকভাবে নির্ণয় করা একটি কষ্টসাধ্য কাজ।এজন্য তাঁকে অনেক প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়।এ সমস্যা সমাধানের জন্য আর্কিমিডিস একটি তত্ত্ব দেন।তার তত্ত্বটি হচ্ছে: “ কোন বস্তুর ওজন এটি দ্বারা অপসারিত তরলের ওজনের সমান”। তার এই তত্ত্বটির উপরই জাহাজ বা অন্যান্য জলযান পানিতে ভেসে থাকে।

আসা করি আপনাদের ভালো লেগেছে।