আমি কোনো সমালোচক না,যে কারো সমালোচনা করব।কিন্তু কেন জানি এই লোকটা সম্পর্কে উল্টা-পাল্টা কথা শুনলে প্রতিবাদ না করে পারি না।আর প্রতিবাদ করার মাধ্যম হিসেবে ব্লগ লেখা ছাড়া আমি আর কিছুই করতে পারি না।তাই আজ লিখতে বসলাম।

যাই হোক, মূল কথায় আসি,হূমায়ূন স্যার তাঁর নুহাশ পল্লীতে গভীর ঘুমে থাকলেও দেশের প্রতিটি হিমু,মিসির আলী ও শুভ্রর মাঝে তিনি জেগে আছেন।এই হুমায়ূন স্যারকে নিয়েই বেশ কয়েকদিন ধরে সোসাল নেটওয়ার্কগুলোতে উল্টা-পাল্টা ছবি শেয়ার করা হচ্ছে।যেখানে তাঁকে হেয় করে বলা হচ্ছে, তিনি নাস্তিক ছিলেন,নিজের মেয়ের বয়সী একটা মেয়েকে তিনি বিয়ে করেছেন, ইত্যাদি ইত্যাদি…।

যারা এসব ছবি তৈরী করছেন এবং যারা ঐসব মানুষের(মানুষ কিনা সে বিষয়ে আমি সন্দিহান) ছবির নিচের কমেন্ট করে তাদের সাপোর্ট করছেন তাদের কাছে আমার একটা প্রশ্ন- আপনাদের কি কাজ নেই?একজন মানুষের ভাল দিক না দেখে তাঁর খারাপ দিক নিয়েই আপনারা বেশী মাতামাতি করেন কেন?অন্য কারো খারাপ গুণগান করার আগে নিজের দিকে তাকিয়ে বলুন তো আপনি কি ১০০% ভালো মানুষ?

আর আপনি যেই অপবাদ দিচ্ছেন যে তিনি নাস্তিক ও মেয়ের বয়সী মেয়েকে বিয়ে করেছে এতে করে হূমায়ূন স্যারের জনপ্রিয়তার বিন্দুমাত্র ক্ষতি হবে বলে আমি মনে করি না।কেন জানেন? কেননা, আমরা অর্থ্যাৎ যারা হূমায়ূন স্যারকে পছন্দ করি তারা ব্যক্তি হূমায়ূনকে চিনি না। চিনি সেই হূমায়ূনকে যিনি হিমু,মিসির আলী ও শুভ্রকে জন্ম দিয়েছে।চিনি সেই লেখক হূমায়ূনকে যিনি তাঁর লেখা দিয়ে আমাদের স্বপ্ন দেখায়,জীবনের প্রকৃত অর্থ খুঁজে পেতে সাহায্য করে।

তাই আপনাকে বলি কি, এসব ফালতু কাজে মন না দিয়ে ভালো কাজ করুন।মানুষ আপনাকেও ভালোবাসবে।ঈশ্বর আপনার মঙ্গল করুন।
ধন্যবাদ।