রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) দু’জন শিক্ষার্থী শব্দানুভূতিসম্পন্ন রোবট তৈরি করেছেন।এরা হলেন যন্ত্রকৌশল বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী ইমাম হোসেন সাদ্দাম ও আবুল মোনজের।এদিকে রুয়েট শিক্ষকরা এ প্রকল্পটি নিয়ে রোববার ক্যাম্পাসে একটি প্রদর্শনীর আয়োজন করেছেন।

ইমাম হোসেন সাদ্দাম ও আবুল মোনজের বলেন, বাদুড়ের শব্দ গ্রহণ কৌশল অনুসরণ করেই রোবটটি তৈরি করা হয়েছে। এতদিন রোবট শুধু চোখে দেখে কাজ করতে পারত। কিন্তু এবার সে শব্দ তরঙ্গের দৈর্ঘ্য অনুভব করেও কাজ করতে পারবে।অনেক দূরে সংঘটিত কোনো দুর্ঘটনা কিংবা বিপদের শব্দ শুনে নিদিষ্ট তরঙ্গ দৈর্ঘ্য গ্রহণ করে নিরাপত্তা থেকে শুরু করে উদ্ধার অভিযানও চালানো যাবে এ রোবট দিয়ে। অন্ধকারে শব্দ শোনা যায়, কিছু দেখা যায় না। এ পরিস্থিতিতে বাদুড় শব্দ তরঙ্গের সাহায্যে পথ চলে। এই বিষয়টি মাথায় রেখেই রোবটটি তৈরি করা হয়।

এ ব্যাপারে রুয়েটের যন্ত্রকৌশল বিভাগের শিক্ষক ও রুয়েট রোবটিক সোসাইটির সভাপতি ড. রোকনুজ্জামান বলেন, এ প্রকল্পটিকে বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদন করা গেলে সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন খাতে ব্যবহার করা যেতে পারে।উপাচার্য অধ্যাপক সিরাজুল করিম চৌধুরী  বলেন, “এটি আসলেই একটি প্রশংসনীয় উদ্যোগ। সামরিক খাত থেকে শুরু করে উদ্ধার অভিযান, যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ, বাংলাদেশের কল কারখানাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে রোবটটি উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করতে পারবে বলে আমরা বিশ্বাস।”