প্রশ্ন : আমি যথা সময়ে ভোটার হিসেবে rejistration করতে পারিনি। এখন কি করা যাবে?
উত্তর: সংশ্লিষ্ট উপজেলা / থানা / জেলা নির্বাচন অফিসে যথাযথ কারণ উল্লেখপূর্বক আবেদন করতে পারেন।

প্রশ্ন : আমি বিদেশে অবস্থানের কারণে voter registration করতে পারিনি। এখন আমি কি করতে পারি?
উত্তর: সংশ্লিষ্ট উপজেলা / থানা / জেলা নির্বাচন অফিসে বাংলাদেশ পাসপোর্ট এর অনুলিপিসহ জন্ম সনদ, নাগরিকত্ব সনদ, এসএসসি সনদ, ঠিকানার সমর্থনে ইউটিলিটি বিলের কপি বা বাড়ী ভাড়া বা হোল্ডিং ট্যাক্সের রশিদের কপি সহ আবেদন করতে হবে এবং সংশ্লিষ্ট ফর্মসমূহ পূরণ করতে হবে।

প্রশ্ন:আমি ২০০৭/২০০৮ বা ২০০৯/২০১০ সালে ভোটার রেজিস্ট্রেশন করেছি কিন্তু সেই সময় আইডি কার্ড গ্রহণ করিনি,এখন কিভাবে তা পেতে পারি?
উত্তর:আপনি আপনার ভোটার রেজিস্ট্রেশন এর সময় প্রদত্ত প্রাপ্তি স্বীকার পত্রটি নিয়ে যে স্থানে ভোটার হয়েছেন সেই এলাকার উপজেলা নির্বাচন অফিসে যোগাযোগ করুন। তবে ঢাকা সিটি কর্পোরেশন এর জন্য এনআইডি রেজিস্ট্রেশন উইং, ইসলামিক ফাউন্ডেশন ভবন,আগারগাঁও,ঢাকা এ যোগাযোগ এর জন্য পরামর্শ দেয়া হল।

প্রশ্ন:ভোটার তালিকার নামের সাথে বিভিন্ন খেতাব, পেশা, ধর্মীয় উপাধি, পদবি ইত্যাদি যুক্ত করা যাবে কিনা?
উত্তর: ভোটার তালিকার ডাটাবেসে শুধুমাত্র নামই সংযুক্ত করার অবকাশ নেই।

প্রশ্ন : কোথা থেকে id card পাওয়া যাবে?
উত্তর। যে এলাকার ভোটার রেজিস্ট্রেশন করেছেন সেই এলাকার উপজেলা / থানা নির্বাচন অফিস থেকে id card পাওয়া যাবে।

প্রশ্ন: আমি বিদেশে চলে যাব।আমার কার্ড কি অন্য কেউ উত্তোলন করতে পারবে?
উত্তরঃ হ্যাঁ।আপনার ক্ষমতা প্রাপ্ত প্রতিনিধির যথাযথ ক্ষমতাপত্র ও প্রাপ্তি স্বীকারপত্র(Authorization Letter)নিয়ে তা সংগ্রহ করাতে পারবে।

প্রশ্ন : কার্ডে ইচ্ছাকৃত ভুল তথ্য দিলে কি হবে?
উত্তরঃজেল বা জরিমানা বা উভয় দণ্ড হতে পারে।

প্রশ্ন : জাতীয় পরিচয় পত্র নম্বর ১৩ আবার কার ১৭ কেন?
উত্তর ঃ ২০০৮ এর পরে যত আইডি কার্ড প্রিন্ট করা হচ্ছে বা পুনঃ তৈরি হচ্ছে সে সকল কার্ডের নম্বর ১৭ ডিজিট হয়ে থাকে।

প্রশ্ন : বিভিন্ন দলিলে আমার বিভিন্ন বয়স /নাম আছে । কোনটা ভোটার রেজিস্ট্রেশন এর ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে?
উত্তরঃ এসএসসি বা সমমানের পরীক্ষার সনদে উল্লেখিত বয়স বা নাম । ভবিষ্যতে ৫ম / ৮ম সমাপনির পরীক্ষার সনদ ও গ্রহণযোগ্য হবে ।

প্রশ্ন : আঙ্গুলের ছাপ দিয়া কি ডুপ্লিকেট এন্ট্রি সনাক্ত করা যায়?
উত্তরঃ হ্যাঁ , সনাক্ত করা সম্ভব।

প্রশ্ন : এক ব্যাক্তির পক্ষে কি একাধিক নামে ও বয়সে একাধিক কার্ড পাওয়া সম্ভব?
উত্তরঃ না। একজন একটি মাত্র কার্ড করতে পারবেন। তথ্য গোপন করে একাধিক স্থানে ভোটার হলে কেন্দ্রীয় সার্ভারে তা ধরা পরবে এবং তার বিরুদ্ধে মামলা হবে।

প্রশ্ন :আমি খুব দরিদ্র ও ১৮ বছরের কম। ১৮ বছরের উপরে বয়স দেখিয়ে একটি id card পেলে গার্মেন্টস এ বা অন্য কোথাও চাকুরী পেতে পারি। মানবিক কারণে এই পরিস্থিতি বিবেচনা করা যায় কি?
উত্তরঃ না। ১৮ বছর বয়স পূরণ হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে ।

প্রশ্নঃ আমি ভুলে ২ বার রেজিস্ট্রেশন করে ফেলেছি , এখন কি করব?
উত্তরঃ যত দ্রুত সম্ভব বিষয় টা সংশ্লিষ্ট জেলা নির্বাচন অফিসে লিখিত ভাবে জানান। বর্তমানে finger print matching কার্যক্রম চলছে। অচিরেই সকল duplicate entry সনাক্ত করা হবা। উল্লেখ্য , যা শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

প্রশ্নঃ id card আছে কিন্তু ২০০৮ এর সংসদ নির্বাচনের সময় ভোটার তালিকায় নাম ছিল না। এরূপ সমস্যা সমাধানের উপায় কি?
উত্তরঃ অবিলম্বে nid registration wing/ উপজেলা / জেলা নির্বাচন অফিসে যোগাযোগ করুন।

প্রশ্নঃ একজনের কার্ড অন্যজন সংগ্রহ করতে পারবে কিনা?
উত্তরঃ ক্ষমতাপত্র ও প্রাপ্তিস্বীকার রশিদ নিয়ে আসলে সংগ্রহ করা যাবে।

প্রশ্নঃ আপনারা বিভিন্ন ফরম এর কথা বলেছেন,সেগুলো কোথায় পাওয়া যাবে?
উত্তরঃNID Registration Wing /উপজেলা/জেলা নির্বাচন অফিসে যোগাযোগ করে সংগ্রহ করা যাবে, বা Website : www.ecs.gov.bd বা www.nidw.gov.bd থেকে download করা যাবে।

প্রশ্নঃ এই সমস্ত ফরমের জন্য কন মূল্য পরিশোধ করতে হয় কি?
উত্তরঃ না।