শিক্ষক(স্যার) নামটা শোনার সাথে সাথে আমার কানে প্রথম যেই শব্দটা আসেঃ  “হোমওয়ার্ক আসে? না থাকলে বেঞ্চের উপর কান ধরে দাঁড়া।” সবার অভিজ্ঞতা আমার মত নাও হতে পারে, অনেকেই আবার বলতে পারেন শিক্ষক নাম শুনলে আমার কানে আসেঃ 

“এই তুমি , হ্যাঁ তোমাকে বলছি তুমি তো অংকে Highest নম্বর
পেয়েছো তাই না? কত ভালো ছেলে/ কত্ত লক্ষ্মী মেয়ে। তোমাকে দিয়েই হবে।”

সে যার কানে যা খুশি শুনুক, যে বিষয় নিয়ে লিখতে যাচ্ছি তা হল কোন দেশের শিক্ষকেরা বেশী শ্রদ্ধেয়। আবারও বলছি বিষয়টা শ্রদ্ধার , টাকা(৳) বা ডলার ($) এর নয়।লেখাটা শুরু আগে এক বন্ধুর সাথে আলোচনা করছি এই বিষয়ে। সে প্রথম শ্রদ্ধা ব্যাপারটাকে টাকা-পয়সার সাথে গুলায় ফেলসিলো।

ইশকুলে যেমন উল্টা থেকে রেজাল্ট দেওয়া শুরু হয় , তেমনি আমিও উল্টা দিয়াই শুরু করলাম। ১০,৯,৮,৭,৬……।

১০) ইউনাইটেড স্টেটস অফ আমেরিকা (ইউএসএ)
উচ্চশিক্ষার বন্দর বলা যায় এই আমেরিকাকে কিন্তু এখানে শিক্ষকতাকে সামাজিকভাবে তেমন একটা শ্রদ্ধা করা হয় না। করা হয় না বলতে  উনারা আসলে ১ নম্বরে আসতে পারে নাই তাই
বললাম।আমেরিকান শিক্ষকেরা শ্রদ্ধার দিক থেকে ১০ নম্বরে অবস্থান করছেন। জরিপে দেখা
গেছে ৮৯% আমেরিকান শিক্ষক তাদের শিক্ষকতার পেশা নিয়ে খুবই খুশি, কিন্তু তারা মনে
করেন না অন্য আমেরিকানরা তাদের এই পেশাকে শ্রদ্ধা করে।জরিপে আরও দেখা যায়, মাত্র

৩৪% আমেরিকান শিক্ষক মনে করেন সামাজিকভাবেও তারা বেশ শ্রদ্ধেয়।
 
৯) রোমানিয়া
প্রায় ৮২% রোমানিয়ান শিক্ষকের ভাষ্যমতে,তাদের সময় কাটে শেখাতে, শিখতে ও স্কুল সম্পর্কিত বিভিন্ন সিদ্ধান্ত
নেওয়ার মধ্য দিয়ে। মাত্র ৩৪.৭% রোমানিয়ান শিক্ষক নিজেদের সামাজিকভাবে শ্রদ্ধেয় বিবেচনা করেন।
৮) ইংল্যান্ড
যুক্তরাজ্যের শিক্ষকেরা পেশাগত দিক থেকে অনেক উন্নতি লাভ করে থাকে কিন্তু মাত্র ৩৫% শিক্ষক বিশ্বাস করেন তারা সামাজিকভাবে শ্রদ্ধেয়।
৭) অস্ট্রেলিয়া
৩৮.৫% শিক্ষকের সামাজিক মর্যাদার বিশ্বাস নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার শিক্ষকের শ্রদ্ধার দিক থেকে বিশ্বে ৭ম অবস্থানে রয়েছে।
 
৬) নেদারল্যান্ড
নেদারল্যান্ডের ৯০% শিক্ষক তাদের শিক্ষকতার পেশা নিয়ে সন্তুষ্ট। অনেক বেশী পরিমানে শিক্ষক সন্তুষ্ট হলেও মাত্র
৪০.৪% শিক্ষক তাদেরকে সামাজিকভাবে মূল্যায়িত মনে করেন।
 
৫) মেক্সিকো
৪৯.৫% মেক্সিকান শিক্ষক সামাজিকভাবে নিজেদের সম্মানিত মনে করে যা তাদের করেছে শ্রদ্ধার দিক থেকে ৫ম
অবস্থান ।
 
৪) ফিনল্যান্ড
হাজার হ্রদের দেশ ফিনল্যান্ডের শিক্ষকেরা সামাজিক মর্যাদার দিক থেকে বিশ্বে ৪র্থ। The Organisation for Economic
Co-operation and Development (OECD) রিপোর্ট অনুযায়ী ৫৮.৬% ফিনিশ (Finnish) শিক্ষকেরা নিজেদের সামাজিকভাবে মূল্যায়িত মনে করেন।ফিনিশ শিক্ষকেরা স্কুলের যে কোনো বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণে অংশগ্রহণ করে থাকে।
 
) দক্ষিণ কোরিয়া
৬৬.৫% কোরিয়ান শিক্ষকের সামাজিক মর্যাদার বিশ্বাস নিয়ে দক্ষিণ কোরিয়ার অবস্থান বিশ্বে তৃতীয়! শতকরা ৯১% শিক্ষক
তাদের পেশাগত জীবনে বেশ উন্নতি করতে পারেন। ৮৫% শিক্ষক তাদের শিক্ষাকতার পেশা নিয়ে সন্তুষ্ট।
 
২) সিঙ্গাপুর
৬৭.৬% সিঙ্গাপুরিয়ান শিক্ষক নিজেদের সামাজিকভাবে প্রশংসিত ও শ্রদ্ধেয় মনে করেন। সিঙ্গাপুর-এর অবস্থান
এই দিক থেকে ২য় !
 
১)মালয়েশিয়াঃ
৮৩.৮% মালয়েশিয়ান শিক্ষকের সামাজিক শ্রদ্ধার বিশ্বাস নিয়ে মালয়েশিয়া রয়েছে ১ নম্বরে।অন্য যেকোনো দেশের থেকে
মালয়েশিয়ান শিক্ষকেরা নিজেদের সামাজিকভাবে বেশী সম্মানিত বিবেচনা করেন।এ দেশের প্রায় ৯৭% শিক্ষক পেশাগত জীবনে উন্নতি লাভ করেন।মালয়েশিয়ান শিক্ষকেরা সপ্তাহে গড়ে মাত্র ১৭ ঘন্টা শিক্ষকতার পেশায় নিযুক্ত থাকেন।
 

 

ছোটবেলায় Aim in Life রচনায় দুটো জিনিস পড়েছি; ডাক্তার না হয় শিক্ষক। রচনায় লেখা থাকত ডাক্তার হইতে চাই গ্রামে গিয়ে বিনামূল্যে রোগীর সেবা করার জন্য আর শিক্ষক হইতে চাই কারণ এর চেয়ে মহৎ ও সৎ পেশা আর নেই।বই আর বাস্তবতা কি তাই বলে? ডাক্তারের দিকে তাকালে মনে হয় বেচারা যেই টাকা খরচ করে মেডিকেলে পড়সে তাতে এখন যদি গ্রামে গিয়া বিনামূল্যে চিকিৎসা করলে ডাক্তারি পড়াটাই বৃথা। আর বেচারা শিক্ষক এত বেশী মহত্ত্বের দেখায় যে
তার বেতন আর বাড়ে না তাই তাকে রকমারি ব্যবসায়-র   পসড়া বসাইতে হয়। তবুও আশা রাখি, এগিয়ে আসবে
বাংলাদেশ। জয় বাংলা।