আমাদের এই দেশের আনাচে-কানাচে অসংখ্য কুঃসংস্কার ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে।এগুলো আমাদের লোক সাহিত্যেরই অংশ বিশেষ।কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের ব্যপার এই যে এই কুঃসংস্কার গুলো সংগ্রহের চেষ্টা কেউ করছে না।আসুন আমরা সবাই মিলে এই কুঃসংস্কার গুলো একত্রিত করি।EduportalBD.com এই কুঃসংস্কার গুলো কে সংগ্রহ করার চেষ্টায় এগিয়ে এসেছে।একার পক্ষে এত গুলো সংগ্রহ করা অসম্ভব প্রায়।তাই আপনাদের সহায়তা আমাদের একান্ত কাম্য।আপনার জানা কোনো কুঃসংস্কার থাকলে আমাদের গ্রুপে পোস্ট করে বা আপনি নিজেও সাইটে পোস্ট করে জানাতে পারেন।আশা করি আমাদের এই প্রচেষ্টায় আপনাদের সমর্থন পাবো।
আমাদের ফেসবুক গ্রুপঃ https://www.facebook.com/groups/EduportalBD/

27324_S_ssc-zero-marks.l

  • লৌকিক ব্যাখ্যা: এই কুসংস্কারটা সম্ভবত সবাই বিশেষ করে ছাত্র-ছাত্রীরা খুব ভাল জানেন।আমাদের দেশের মায়েরা নিজেদের আদরের সন্তানদের পরীক্ষার আগে আর যাই খেতে দেন ভুলেও ডিম খেতে দেন না।কারণ ডিম খেলে নাকি পরীক্ষাতেও ডিম মানে আন্ডা মানে গোল্লা মানে শূন্য পাবেন। 😥

 

  • বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা: এইটার যে কোন বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা নেই তা নিশ্চয় দেখেই বুঝতে পারছেন।কারণ এমনিতেও ডিম একটি পুষ্টিকর খাদ্য।তা বাদে পরীক্ষার নাম্বার কোনভাবেই একটা নিরীহ ডিমের উপর দেয়া যায় না।আমার মত ছাত্র হলে এমনিই গোল্লা পাবেন, তা আপনি ডিম খান বা নাই খান।তবে আমি ব্যক্তিগতভাবে একতা সমাধান দিতে পারি, তা হল ডিম=০ যদি হয়, তাহলে একটা কলা=১ আর দুইটা ডিম (অর্থাৎ দুই শূন্য)খেয়ে যান।তাহলেই ১,০,০ মানে ১০০ পেয়ে যাবেন। চেষ্টা করেন ১০০ পেলে জানাবেন। eggs