একাদশ শ্রেনীতে যারা কলেজে ভর্তির জন্য আবেদন করেছিলেন গতকাল তারা ভর্তিফলাফল পেয়েছেন।অনেকেই ভালো ভালো কলেজে ভর্তি হবার সুযোগ পেয়েছেন।কিন্তু তারপরেও অনেকের মাথায় চিন্তার রেখা, কেননা ঢাকার শেষ্ঠ কলেজ ও মেধাবীদের আড্ডাখানা নটর ডেম কলেজ তাদের ফলাফল প্রকাশ করে নি। 🙁
নটর ডেম কলাজ সরকারের নিয়ম অনুযায়ী ভর্তি নিবে না বলে জানিয়েছে।এ জন্য তাদের কলেজ থেকে গতানুগতিক নিয়ম অনুযায়ী লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে হাতে Frutika জুস নিয়ে ফর্ম তুলতে হবে। 😛
নটর ডেম কলেজের ফর্ম বিতরণ ও ভর্তি প্রক্রিয়াঃ

  • বিজ্ঞানীদের জন্যঃ আজ (দুপুর না বিকাল বুঝতেছি না, টাইম টাই বলি) ঘড়িতে যখন ৩ টা বাজবে তখন থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত বিজ্ঞান শাখার বিজ্ঞানীদের কলেজ কাউন্টারে ফর্ম বিতরণ করা হবে।
  • ব্যবসায়ীদের ও অন্যান্যদের জন্যঃকালকে অর্থ্যাৎ মঙ্গলবার সকাল ৯ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ পর্যন্ত ব্যবসায় সহ সকল অন্যান্য সকল শাখায় ফর্ম বিতরন করা হবে।

ফর্ম ও ভর্তি প্রক্রিয়ায় খরচ হবে মাত্র ১০০টাকা।ফরম পূরণ করে ঐ দিনই জমা দিতে হবে।ফরম কেনার সময় আপনাকে ২টা জিনিস আনতে হনে।

  1. এক কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি।
  2. পরীক্ষার ফলাফলের ইন্টারনেট প্রিন্ট। যারা ইন্টারনেট প্রিন্ট সংগ্রহ করেন নি তারা এখান থেকে প্রিন্ট করে নিন।

নটম ডেমে আবেদনের যোগ্যতা ও ফলাফল প্রকাশঃ

  1. বিজ্ঞান বিভাগঃ বাংলা ও ইংরেজী মাধ্যমের অবেদনকারীদের উচ্চতর গণিতসহ জিপিএ-৫।
  2. ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগঃ  বাংলা ও ইংরেজী মাধ্যমের অবেদনকারীদের জিপিএ-৪
  3. মানবিক বিভাগঃ বাংলা ও ইংরেজী মাধ্যমের অবেদনকারীদের জিপিএ-৩

বিভাগ পরিবর্তনের ক্ষেত্রেঃ

  1.   বিজ্ঞান থেকে মানবিকে জিপিএ-৩
  2.   বিজ্ঞান থেকে ব্যবসায় জিপিএ-৪.৫০
  3. ব্যবসায় থেকে মানবিকে জিপিএ-৩
  4. মানবিক থেকে বিজ্ঞান বা ব্যবসায় বিভাগে যেতে পারবে না।

প্রার্থীরা ইচ্ছা করলে একাধিক শাখায় আবেদন ও করতে পারবে।
ফলাফল প্রকাশঃ

  • আবেদন ফরমের ক্রমিক নং অনুযায়ী ২১ জুন দৈনিক সমকাল পত্রিকায় প্রাথমিকভাবে মনোনীতদের তালিকা প্রকাশ করা হবে।
  • ২২ ও ২৩ জুন কলেজের নির্দিষ্ট কক্ষে নির্ধারিত সময় অনুযায়ী পরীক্ষা যুদ্ধে অংশগ্রহন করতে হবে।
  •   ২৫ জুন ভর্তি যুদ্ধে যারা জয়ী হয়েছে তাদের তালিকা সমকাল পত্রিকায় প্রকাশ করা হবে ঐ দিন বিকালেই বিজয়ীদের কলেজে ভর্তির ফরম বিতরণ করা হবে।
  • ২৬ ও ২৭ জুনের মধ্যে সকল টাকা পরিশোধ করে দিয়ে নটর ডেমে ভর্তি হয়ে যাবেন। 😀

দেখেন ভাই নটর ডেম কিন্তু খুবই কম সময়ে বিশাল এই যুদ্ধের আয়োজন করেছে তাই যুদ্ধের নেতা/ কলেজের অধ্যক্ষ “ফাদার বেজ্ঞামিন ডি কস্তা” সবার সহযোগিতা চেয়েছেন। 😛