Titanic_Grand_Staircase
Titanic_Grand_Staircase

গত কয়েকদিন যাবৎ Titanic মুভিটা বেশ কয়েকবার দেখেছি আমি এবং প্রতিবারই জাহাজ ডোবার সময় মনে হয় যেন আমিও জাহাজের সাথে ডুবে যাচ্ছি। এটা নিয়ে স্বপ্নও দেখেছি বেশ কয়েকবার। টাইটানিকের সেই যাত্রায় যদি সাথে থাকার সৌভাগ্য আমার থাকত তবে তার অভ্যন্তরীণ কি কি জিনিস আমরা দেখতে পেতাম এই পর্বে সেসব নিয়েই আলোচনা করব।
অভ্যন্তরীণ টাইটানিক মোট ১০টি ডেকে বিভক্ত ছিল। সেগুলোর নামসমূহে নিচে দেওয়া হল:
১.Boat Deck
২.Promenade Deck
৩.Bridge Deck
৪.Shelter Deck
৫.Saloon Deck
৬.Upper Deck
৭.Middle Deck
৮.Lower Deck
৯.Orlop Deck
১০.Tank Top

Titanic Boat Deck
Titanic Boat Deck
Titanic Bridge Deck
Titanic Bridge Deck
Titanic Promenade Deck
Titanic Promenade Deck
saloon-deck-titanic
Titanic Saloon Deck
Titanic Shelter Deck
Titanic Shelter Deck

ধারণ যাত্রীদের জন্য এবং পাবলিক এরিয়া গুলো ছিল Promenade, Bridge, Shelter, Saloon, Upper, Middle এবং Lower এই কয়েকটি ডেকে (Deck = আমরা বাড়িতে যেমন বিভিন্ন তলায় বিভক্ত করি, তেমনি জাহাজকে বিভিন্ন কাজে নানা অংশে বিভক্ত করা হয় একে Deck বলে) অবস্থিত ছিল।
বাকি তিনটি ডেক অর্থাৎ Boat, Orlop এবং Tank Top এগুলো ক্রু, মালামাল ও যন্ত্রপাতি (যেমন: ইন্জ্ঞিন, বয়লার) ইত্যাদির ব্যবহৃত হত।
টাইটানিক যখন প্রথম অভ্যন্তরীণ নকশা করা হয় তাতে যাত্রীদের বিলাস বহুলতার সহায়ক হিসেবে বেশ কিছু নতুন নতুন Feature সংযুক্ত করা হয়েছিল। তার মধ্যে ছিল বিশাল সুইমিংপুল, র্তুকি স্টাইলের গোসল খানা, স্কোয়াম কোর্ট ও জিমনেশিয়াম। আর এ সবগুলোও ছিল First Class যাত্রীদের জন্য।
First Class যাত্রীদের জন্য যে পাবলিক-রুম গুলো বরাদ্দ ছিল, তাতে ছিল অতি বিলাসী সেলুন, অভ্যর্থনা কক্ষ, লাইব্রেরী, ধূমপানের কক্ষ, ক্যাফে এবং পুল জোন (পুল খেলার জন্য।) প্রথম শ্রেণীর যাত্রীদের জন্য বরাদ্দ র্তুকি গোসলখানাটির বাহ্যিক আরব্য রাজ প্রসাদের স্টাইলে। এরকম বেশ কয়েকটি গোসলখানা ছিল টাইটানিকে।

 

প্রথম শ্রেণীর ডেকগুলোর সিঁড়িগুলোও ছিল আভিজাত্যের অনন্য এক নিদর্শন। সতের শতকের ডিজাইনার William ও Mary এর রেখে যাওয়া ডিজাইন অনুযায়ী

 

Titanic_Grand_Staircase
Titanic_Grand_Staircase

তৈরি করা হয় এটি। পেঁচানো এই সিঁড়ির সর্বমোট দৈর্ঘ্য ছিল ৬০ ফুট। সিঁড়ির হাতলের অর্ধেকটা ছিল কাচ এবং বাকী অর্ধেকটা ছিল পিতলের তৈরি। অবশ্য প্রধান ডিজাইনার থমাস অ্যান্ড্রুসের ইচ্ছে ছিল সিঁড়ি হবে গ্রাফাইট ও মার্বেলের সমন্বয়ে কিন্তু প্রযুক্তির কারণে গ্রাফাইট ব্যবহার সম্ভব হয়নি।

টাইটানিকের অভ্যন্তরীণ সাজসজ্জার বর্ণনা সবে তো শুরু। এক পর্বে তার সবগুলো আলোচনা করা অসম্ভব। আজ তবে এ পর্যন্তই থাক। আগামী পর্বে প্রথম শ্রেণীর যাত্রীদের জন্য বরাদ্দ পুল, বিলাসবহুল কক্ষগুলো ইত্যাদি বিস্তারিত বিবরণ তুলে ধরব। বিদায়।
দি রির্টান অব টাইটানিক [পর্ব-১]
দি রির্টান অব টাইটানিক [পর্ব-২]
দি রির্টান অব টাইটানিক [পর্ব-৩]
দি রির্টান অব টাইটানিক [পর্ব-৪]